মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রখ্যাত ব্যক্তিত্ব

                                                     কাজী শেখ রেয়াজ উদ্দিন আহমেদ

১৮৮৩ সালের জানুয়ারী মাসে কালীগঞ্জের দলগ্রাম ইউনিয়নের কাজী পরিবারে কাজী শেখ রেয়াজ উদ্দিন আহমেদ জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম হাজী শেখ মুহম্মদ জয়েন উল্লাহ এবং মাতার নাম ফুল বিবি। তিনি একাধারে একজন লাঠিয়াল, শিক্ষাবিদ, ঐতিহাসিক, সাহিত্যিক এবং সমাজ সচেতন সংগ্রামী ব্যক্তি ছিলেন। তিনি স্যার সৈয়দ আমীর আলী রচিত ‘শর্ট হিস্ট্রি অব দি স্যারাসেনস' গ্রন্থের সার্থক অনুবাদ করেছিলেন। তিন খন্ডে অনুবাদকৃত গ্রমহটি ‘আরব জাতির ইতিহাস' নামে প্রকাশিত হয় যথাত্রুমে প্রথম খন্ড ১৯১০ সালে, দ্বিতীয় খন্ড ১৯১২ সালে এবং তৃতীয় খন্ড ১৯১৫ সালে। বাংলা একাডেমী ১৯৭১ সালে গ্রন্থটির তিন খন্ড একত্রে প্রকাশ করে। তাছাড়া তিনি ১৮৯৬ সালে লন্ডন ও আলীগড় থেকে প্রকাশিত Sir Thomas Walker Arnoldরচিত The Preaching of Islamগ্রন্থটি অনুবাদ করে এর নাম দেন ‘ইসলাম প্রচারের ইতিহাস'। তার রচিত উপন্যাস ‘মালেকা' ১৯২০ খ্রিস্টব্দে প্রকাশিত হয়। কাজী শেখ রেয়াজ উদ্দিন আহমেদ একজন লাঠিয়াল হিসেবে ব্যাপক পরিচিত ছিলেন। তিনি ১৯৩৪ সালে প্রতিষ্ঠিত নিখিল বঙ্গ লাঠিয়াল সমিতির সভাপতি ছিলেন। দেশ বিভাগের পর এ সমিতির নাম হয় পূর্ব পাকিসতান লাঠিয়াল বাহিনী। প্রায় ২০ হাজার লাঠিয়াল এ বাহিনীর সদস্য ছিল। পাকিসতান সরকার তাকে ‘তমঘা-ই মজলিস' খেতাবে ভূষিত করে। ১৯৭২ সালের ২৫ জুন তিনি মারা যান।

 

                                                         ধর্ম্মনারায়ণ সরকার ভক্তিশাস্ত্রী

১৯১৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর কালীগঞ্জের দলগ্রাম ইউনিয়নের শ্রীখাত গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন উত্তরাঞ্চলের প্রখ্যাত গবেষক ধর্ম্মনারায়ণ সরকার ভক্তিশাস্ত্রী। তার পিতার নাম রামহরি সরকার এবং মাতার নাম ধনেশ্বরী দেবী। ১৯৪১ সালে তিনি প্রতিষ্ঠানিক শিক্ষাজীবন শেষ করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন। দলগ্রামে তিনি ‘দাদাভাই যুব নাট্য সংঘ’ নামে একটি নাট্যগোষ্ঠী গড়ে তুলেছিলেন। তার লেখা দুটি নাটক ‘দাদা’ এবং ‘নাটক নয়’ বহু স্থানে মঞ্চস্থ হয়েছিল। ১৯৭৬ সালের ৩১ জানুয়ারী তিনি শিক্ষকতা পেশা থেকে অবসর নেয়ার পর ইতিহাস-ঐতিহ্য বিষয়ে গবেষণা এবং পরমার্থিক প্রচারে আত্মনিয়োগ করেন। তার রচিত তিনটি গ্রন্থের মধ্যে ১৩৯০ বঙ্গাব্দের ১৪ ভাদ্র প্রকাশিত হয় উত্তরবঙ্গীয় রাজবংশী ক্ষত্রিয় জাতির ইতিহাস, ১৩৯১ বঙ্গাব্দের ২৩ ভাদ্র রায় সাহেব পঞ্চানন এবং ১৩৯২ বঙ্গাব্দের ২৭ মাঘ প্রকাশিত হয় উত্তর বাংলার লোক সাহিত্য ও ভাষা। তিনি ১৯৮১ সালে বিশ্ব বৈষ্ণব রাজসভা থেকে ‘ভক্তিশাস্ত্রী’ উপাধি ও সম্মান লাভ করেন এবং ১৯৮২ সালে নবদ্বীপধাম প্রচারণী সভা তাকে ‘উপদেশক’ উপাধি ও সম্মান প্রদান করেন। ১৯৯২ সালের ১৯ অক্টোবর তিনি ইহলোক ত্যাগ করেন।


Share with :
Facebook Twitter